রোমানিয়া থেকে অবৈধভাবে হাঙ্গেরি প্রবেশের সময় ২০ জন বাংলাদেশি ও ২০ জন সিরীয় নাগরিককে আটক করেছে সে দেশের পুলিশ। তাদের পাচারে সহযোগী হিসেবে দুই লাটভীয় নাগরিককেও আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সাতু মেরে বর্ডার পুলিশ।

রোমানিয়া বর্ডার পুলিশের সূত্রে ইনফো মাইগ্রেন্টসের এক সংবাদে বলা হয়, রোমানিয়া থেকে অনিয়মিত উপায়ে হাঙ্গেরি সীমান্ত অতিক্রম করতে চাওয়া ৪০ জন অভিবাসীকে তাদের সঙ্গে থাকা দুই গাইডসহ পৃথক দুটি অভিযানে আটক করা হয়েছে।

সীমান্ত পুলিশের আইপিজে সাতু মেরে শাখা এবং হাঙ্গেরি সীমান্ত পুলিশ যৌথভাবে এই অভিযান পরিচালনা করে।

বর্ডার পুলিশের সিগেতু মারমাটিই টেরিটোরিয়াল ইন্সপেক্টরেটের দপ্তর জানায়, আটকদের মধ্যে ২০ জন বাংলাদেশি এবং ২০ জন সিরীয়। তাদের মূল গন্তব্য ছিল ইতালি। অভিবাসীদের সঙ্গে সীমান্ত এলাকায় অবস্থান করা দুটি মিনিবাসও জব্দ করা হয়েছে।

দুই মিনিবাসের চালক হিসেবে ছিলেন দুজন লাটভীয় নাগরিক। জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজনে তাদের ২৪ ঘণ্টার জন্য আটক করা হয়েছে। তারা অভিবাসীদের গাইড এবং পাচারে সহযোগী হিসেবে কাজ করছিলেন বলে ধারণা পুলিশের।

বর্ডার পুলিশ আরও জানায়, তদন্তের পর ২০ বাংলাদেশির কারও কাছেই বৈধ পরিচয়পত্র না থাকায় সবাইকে স্থানীয় সাতু মেরে বর্ডার পুলিশের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। অভিবাসীদের সবাই ২০ থেক ৪০ বছর বয়সী।

চলতি বছরের ৩ আগস্ট থেকে অবৈধ অভিবাসন প্রতিরোধ ও মোকাবিলায় একটি যৌথ দল গঠন করে রোমানিয়া। নতুন এই পরিকল্পনায় সাতু মেরে পুলিশের টেরিটোরিয়াল সার্ভিসে, কেরেই বর্ডার পুলিশ এবং বেরভেনির পুলিশের সঙ্গে সীমান্তবর্তী পেত্রেতি অঞ্চলের গ্রাম পুলিশ বিভাগকেও যুক্ত করা হয়।

এছাড়া রোমানিয়া থেকে অনিয়মিত উপায়ে শেঙ্গেন অঞ্চলে প্রবেশ করতে চাওয়া বাংলাদেশি অভিবাসীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।