সাপ দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর জোড়া যাবজ্জীবন

দক্ষিণ ভারতের কেরালা রাজ্যে কোবরা এবং রাসেল ভাইপার দিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করেছিলেন সুরাজ কুমার নামের এক ব্যক্তি। এমন অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ওই ব্যক্তিকে জোড়া যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। কৌঁসুলিরা এমন রায়কে বিরল বলে অভিহিত করেছেন। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

রাজ্যের কৌঁসুলিরা জানিয়েছেন, সাপ দিয়ে স্ত্রী উথরাকে হত্যার জন্য স্বামী সুরাজ কুমার (২৮) দুইবার চেষ্টা চালান। প্রথমবার সে স্ত্রীর ওপর বিষাক্ত সাপ রাসেল ভাইপার ছেড়ে দেয়। সে সময় প্রায় দুই মাস হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বেঁচে যায় উথরা।

এরপর দ্বিতীয় দফায় এক সাপুড়ের কাছ থেকে কোবরা কিনে ঘুমন্ত স্ত্রীর ওপর ছেড়ে দেয় সুরাজ কুমার। সাপের কামড়ে মৃত্যু হয় ২৫ বছর বয়সী উথরার। ২০২০ সালের মে মাসে মার যান ওই নারী।

উথরার বাবা-মা এ ঘটনার জন্য সুরাজ কুমারকে সন্দেহ করে এবং অভিযোগ জানান যে, তাদের মেয়েকে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করা হতো। এরপর গত বছর সুরাজ কুমারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সোমবার কেরালার কোল্লাম জেলার একটি আদালত সাপ দিয়ে স্ত্রীকে হত্যার জন্য স্বামী সুরাজ কুমারকে দোষী সাব্যস্ত করে। স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিচারক এম মনোজ বুধবার (১৩ অক্টোবর) ওই ব্যক্তিকে জোড়া যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। আসামির বয়স বিবেচনায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেয়নি আদালত।

সুরাজ কুমারকে পুরো সাজাই ভোগ করতে হবে। অর্থাৎ একবার যাবজ্জীবনের সাজা শেষ হলে দ্বিতীয়বারের সাজা শুরু হবে। অর্থাৎ জীবনের বাকিটা সময় তাকে হয়তো কারাগারেই থাকতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here