রোহিঙ্গাদের জন্য ভাসানচর নিরাপদ:: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা

ঢাবি রিপোর্টার।বাস্তচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য কক্সবাজারের চেয়ে ভাসানচর অনেক বেশি নিরাপদ ও সুবিধাজনক। দ্বীপটিতে আধুনিক সব অকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি শরণার্থীদের আয়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সেখানকার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাও উন্নতমানের। দ্বীপটিকে আরও টেকসই করতে সুপেয় পানি সংরক্ষণ, কুটিরশিল্প স্থাপনসহ কিছু বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের এক গবেষণায় এসব তথ্য উঠে এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে শনিবার (৬ মার্চ) সকালে গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে সেমিনারে অতিথিরা। 

বাস্তচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কক্সবাজার থেকে ভাসানচরে স্থানান্তর: সুবিধা এবং প্রতিকূলতা শীর্ষক ওই গবেষণায় কক্সবাজার ও ভাসানচরের মধ্যে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করা হয়। সেন্ট্রাল ফাউন্ডেশন ফর ইন্টারন্যাশনাল এন্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (সিএফআইএসএস) গবেষণায় সহায়তা করে।
ফলপ্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন সিএফআইএসএসের চেয়ারম্যান কমডোর এম এন আবসার। এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম, ড. দেলোয়ার হোসেন, ড. জিল্লুর রহমান প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।