মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে কুসংস্কার ভাঙতে সব ক্ষেত্রে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। না হলে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার সমাধান করা সম্ভব হবে না। মানসিক স্বাস্থ্যসেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ‘মনের বন্ধু’ আয়োজিত মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক ভার্চ্যুয়াল আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ কথা বলেন।

‘মাইন্ড দ্য গ্যাপ: সমসাময়িক মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়াবলি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ৯ ও ১০ সেপ্টেম্বর এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশে মানসিক স্বাস্থ্যক্ষেত্রে অনলাইনভিত্তিক এ ধরনের আন্তর্জাতিক সম্মেলন এই প্রথম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দীপু মনি আরও বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর পাঠ্যক্রমের পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সমান গুরুত্ব দিতে হবে। প্রায় দেড় বছর পর স্কুল খুলছে। শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরার জন্য তাদের সবচেয়ে বড় প্রস্তুতি মানসিকভাবে নিতে হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে মানসিকভাবে তাদের সব কিছু্র সঙ্গে মানিয়ে নিতে সমস্যা হতে পারে। শিক্ষার্থীদের পাঠ্যসূচির পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যেরও যত্ন নিতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে শিক্ষকদের শিক্ষার্থীদের মনঃস্বাস্থ্যের ওপর গুরুত্ব দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার বলেন, মানসিক স্বাস্থ্য বিশ্বব্যাপী এক সমস্যার নাম। অসংখ্য মানুষ আজ মানসিক সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। করোনা মহামারির কারণে মানসিক সমস্যা আরও অতিমাত্রায় দেখা দিয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ কারণে বছরের একটি মাস ‘মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতা মাস’ হিসেবে পালন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত জানান, করোনার সময় ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রামের আমেরিকান সেন্টারগুলোতে ভার্চ্যুয়ালি মানসিক স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে কাজ করা হয়েছে, যা বাংলাদেশের মানুষের অনেক উপকার হয়েছে। বাংলাদেশে দেড় বছর পর স্কুল খোলার কারণে ছাত্রছাত্রীদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে সবাই মিলে কাজ করতে হবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের গ্লোবাল হেলথ অ্যান্ড সোশ্যাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক বিক্রম প্যাটেল, ইউএনডিপি রিজওনাল হাব ইন ব্যাংককের প্রোগ্রাম স্পেশালিস্ট বেনিয়াম গেবরেজগি এবং মনের বন্ধুর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদা শিরোপা। এই আয়োজনে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন বিশ্বখ্যাত মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক নরম্যান সারকোরিয়াস।

সম্মেলন নিয়ে তৌহিদা শিরোপা জানান, এই আয়োজনে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা ক্ষেত্রে গবেষণা, উদ্ভাবন ও সর্বোত্তম অনুশীলনগুলো তুলে ধরা হয়েছে। পাশাপাশি নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে মানসিক স্বাস্থ্য ও সুস্থতার গুরুত্ব নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে। বাংলাদেশের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সম্মেলনে মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অর্জন এবং বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া বিশ্বব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর করোনা মহামারির প্রভাব নিয়ে বিশেষজ্ঞরা তাঁদের মতামত দিয়েছেন।

এই সম্মেলনে দুই দিনের বিভিন্ন অধিবেশনে বক্তৃতা ও উপস্থাপনা উপস্থাপন করেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পরিচালক বিধান রঞ্জন রায় পোদ্দার, এনসিডিসির অসংক্রামক রোগের লাইন ডিরেক্টর মোহাম্মদ রোবেদ আমিন, অভিনেতা ইরেশ যাকের, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এডুকেশনাল অ্যান্ড কাউন্সেলিং সাইকোলজি বিভাগের অধ্যাপক মেহেজাবিন হক, ঢাকার ইএমকে সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আসিফ উদ্দিন আহমেদ, ভারতীয় মনোবিজ্ঞানী ভারব শাহ, যুক্তরাষ্ট্রের ভাইব্রেশনাল এনার্জি হিলারের কাউন্সেলর এরিক কুসেরা, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি রুবানা হক, বিজিএমইএর সহসভাপতি শহীদুল্লাহ আজিম, দি ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের বাংলাদেশ ও ভুটানের মানব উন্নয়ন প্র্যাকটিস লিডার কেইকো ইনো, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক হার্স্ট হানন্যাম, নেদারল্যান্ডসের মনোবিজ্ঞানী জস পোয়েলমান, ইউএনডিপির ব্যাংকক রিজিওনাল হাবের ইয়ুথ কো-ল্যাবের সেজ ওয়াই চুইং, অস্ট্রেলিয়ার রেভল্যুশন অব মাইন্ডের পরিচালক ক্রেইজ হজেস, ইউনিসেফের এমএইচপিএসএসের স্টাফ লিড মিশেল মে, জন হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথের অধ্যাপক হলি সি উইলকক্স, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ সামিহা বরকত, বাংলাদেশে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ন্যাশনাল প্রফেশনাল অফিসার মাহফুজুল হক, তৈরিপোশাক খাত বিশেষজ্ঞ জামাল উদ্দিন, দি ডেইলি স্টারের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিজিটাল এডিটর আবিদা চৌধুরী, ইস্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেডের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (রিটেইল ও এসএমই ব্যাংকিং) এম খোরশেদ আনোয়ার, মনের বন্ধুর রিসার্চ লিড শিখ্‌তী সানিসহ অনেকে।

সম্মেলন আয়োজনের স্ট্রাটিজিক পার্টনার ছিল ইউএনডিবি ইয়ুথ:কোল্যাব। পৃষ্ঠপোষক ছিল ইএমকে সেন্টার ও ইস্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেড। মিডিয়া পার্টনার ছিল দ্য ডেইলি স্টার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here