মাদক ব্যাবসায়ী কাশেমের বিরুদ্ধে এক নারীর সংবাদ সম্মেলন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:
ঝিনাইদহে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মিথ্যা অপহরণ মামলা প্রত্যাহার ও  দালাল মাইক্রো কাশেমের ভয়ভীতি এবং হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন হয়েছে। ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার যোগিহুদা গ্রামের আবুল কাশেম এবং তার স্ত্রী মৌসুমী খাতুন মঙ্গলবার দুপুরে ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মৌসুমী খাতুন বলেন, উপজেলার আজমপুর ইউনিয়নের কাশিপুর ঘোষপাড়া গ্রামের শ্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রিয়াংকা ঘোষ গত ২১ ফেব্রুয়ারী জনৈক শাহীনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে বাড়ী থেকে চলে যায়।
আমি ও আমার পরিবারের কেউ প্রিয়াংকা বা তাদের পরিবারের কাউকে চিনিনা। অথচ প্রিয়াংকার পিতা শ্রী বঙ্গবন্ধু ঘোষ গত ২৪ ফেব্রুয়ারী  মহেশপুর থানায় ৮ জন কে আসামী করে একটি অপরহরণ মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-৬৭)। এই মামলায় মাদক ব্যবসায়ী কাশেমের প্ররোচনায় আমাকে ৭ নং আসামী করা হয়। মামলার আসামী হিসেবে নাম দেয়ার অন্যতম কারন, আমি গত চার বছর আগে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে স্বামী সংসার নিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করছি। মাইক্রো কাশেম আমাকে বিভিন্ন সময়ে কুপ্রস্তাব দিতো। আমি তাতে রাজি না হওয়ায় আমার বিরুদ্ধে মামলা করে। এছাড়া মহেশপুর পৌরসভা এলাকায় জেলা পরিষদের অডিটরিয়ামের প্রাচীরের সাথে আমার শশুর পৌর মেয়রের অনুমতি নিয়ে একটি পোল্ট্রি মুরগী বিক্রির দোকান দিয়ে ব্যবসা করছিলেন। সেই দোকানও সন্ত্রাসী দিয়ে কাশেম দখল করে নিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি এবং সন্ত্রাসী কাশেম বাহিনীর অত্যাচার নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।