ভ্যাকসিন পেতে ঝালকাঠিতে ৭৪৫ জনের রেজিস্ট্রেশন

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ জটিলতা নিয়েই ঝালকাঠি জেলায় বহুল প্রতীক্ষিত করোনাভাইরাসের প্রতিরোধ টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। রবিবার সকাল ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মধ্যেমে ভ্যাকসিন প্রদানের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি। এর পরেই ১৫ ক্যাটাগরিতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে। জেলায় চাহিদা পাঠানো হয়েছিল ১৯ হাজার ডোজ, এসেছে ১২ হাজার। শনিবার দুপুর পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশনকারী ৭৪৫ জনের তালিকা পেয়েছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ভ্যাকসিন প্রদানের জন্য জেলায় বিভিন্ন ক্যাটাগরির ১৯ হাজার মানুষের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এদের ভ্যাকসিন প্রদান ব্যবস্থাপনা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করতে মোবাইলফোনে এপস’র ও ওয়েবসাইটে নিবন্ধনের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে বলা হয়েছে। ব্যক্তি নিজে নিবন্ধন কাজ সম্পন্ন করতে না পারলে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারসমূহের উদ্যোক্তাদের সহযােগিতায নিবন্ধন সম্পন্ন করা যাবে। আর এভাবেই অনেকের রেজিস্ট্রেশন সফল হয়েছে, কারো আবার হয়নি। শনিবার দুপুর পর্যন্ত জেলায় রেজিস্টেশনকারী ৭৪৫ জনের তালিকা পেয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে ১৮ বছরের নিচে এবং গর্ভবতী নারীদের টিকা দেওয়া হবে না।
ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী বলেন, টেকনিক্যাল সমস্যা এখনো রয়ে গেছে, এগুলো সমাধান হয়নি। যারা রেজিস্ট্রেশন করেছেন, তাদের মধ্য থেকে জেলায়  কেন্দ্রওয়ারী ৭৫০ জনের তালিকা পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল কেন্দ্রে  ৪১০, কাঁঠালিয়া উপজেলায় ১১০, রাজাপুরে ১৫০ ও নলছিটিতে ৭৫ জন রয়েছেন। অনেকে রেজিস্ট্রেশন করেও ফিরতি ম্যাসেজ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন।
ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলীকে ভ্যাকসিন প্রদানের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম উদ্বোধন করতে চাচ্ছি। আমাদের জেলা সদরে ৮টি, ও তিনটি উপজেলায় তিনটি করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত টিম তৈরি করা হয়েছে ভ্যাকসিন প্রদানের জন্য। শনিবার বিকেলের মধ্যেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্যাকসিন পৌঁছে যাবে। ভ্যাকসিন প্রদানের জন্য সবধরণের প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে।
উল্লেখ্য ঝালকাঠি সদর হাসপাতালসহ তিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা প্রদানের কেন্দ্র খোলা হয়েছে । ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ৮টি বুথ থাকবে । প্রয়োজনে বুথের সংখ্যা বাড়ানো হবে।