ভোলায় মহানবী (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তির সন্দেহে আটক গৌরাঙ্গ।

ভোলা জেলা সংবাদদাতা।

ভোলায়  সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তি ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার অভিযোগে  বাংলাদেশ পূজা উদর্যাপন পরিষদ ভোলা জেলা শাখার সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে(৫০) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযুক্ত গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে কে ৫৪ ধারায় আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

এদিকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তি ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ভোলা জেলা উত্তর শাখা বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। এবং আগামী ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম ষোষনা করেন সংগঠন এর নেতা কর্মীরা।

জানা যায়, বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাতে সাড়ে ৯টা Gourango নামের একটি ফেজবুক আইডির মেসেঞ্জার থেকে জয় রাম নামের ফেজবুক আইডির মেসেঞ্জারে মহানবী মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তি ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় মন্তব্য করে। এবং পরবর্তিতে জয় রাম নামের ফেজবুক আইডিতে Gourango নামের এই আইডির কথপোকথন স্কিনসট (ছবি)  করে পোস্ট করেন এবং গৌরাঙ্গ কে মোসলমান দমনে সেরা নেতা দাবি করে পোস্ট করেন। যা দ্রুত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে জেলার ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এবং গতকাল রাতে উত্তেজিত জনতা ভোলা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাচিয়া কলোনিতে বাংলাদেশ পূজা উদর্যাপন পরিষদ ভোলা জেলা শাখার সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দের বাড়িতে থাকা তার গাড়িতে হামলা ও ভাংচুরের আশংকার অভিযোগ করে গৌরাঙ্গের পরিবার।

তবে এ ঘটনায় রাতেই ভোলা সদর মডেল থানায় বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ভোলা জেলা শাখার সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে নিজে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন এবং নিজের নিরাপত্তার জন্য নিজেই থানায় গিয়ে অবস্থান নেন।

ভোলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের কাজ চলছে। গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে’কে ৫৪ ধারায় সন্দেহভাজন হিসাবে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং নিরাপত্তার জন্য তার বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অপরাধী যেই হউক আইনের আওতায় তার বিচার হবে।
মোঃ জহিরুল হক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here