ভোলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ভোলা জেলা সংবাদদাতা।
মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে ভোলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের ব্যাংকের হাট বাজার এলাকায় দৃষ্টিনন্দন এই মসজিদটি সহ একযোগে দেশের ৫০ টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। শুধু নামাজ আদায় নয় এখান থেকে ইসলামী গবেষনা ,সংস্কৃতি এবংজ্ঞান চর্চার সুযোগ মিলবে এই স্থাপনা গুলোতে।
ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ও গণপূর্ত বিভাগের বাস্তবায়নে মসজিদটি নির্মাণ করে ভোলার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অর্ণি এন্টারপ্রাইজ ও প্রিয়ন্ত্রী এন্টার প্রাইজ (জেবি)। মসজিদটি নির্মাণে সময় লেগেছে দুই বছর। যার ব্যয় হয়েছে প্রায় ১২ কোটি টাকা। এদিকে ভোলার ব্যাংকের হাট মডেল মসজিদ টি নির্মাণের পর এলাকার মানুষ মাঝে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। ইতিমধ্যে দূর-দূরান্ত থেকে মুসুল্লিরা নামাজ পড়তে ও দেখার জন্য মসজিদে ছুটে আসেন। সাধারণ মানুষের মাঝে দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে।
ভোলা গনপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কাজী শরীফ উদ্দিন আহমেদ ইনকিলাবকে জানান শুধু নামাজ আদায় নয় আছে আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধা রয়েছে এই মডেল মসজিদে।এই মডেল মসজিদে নারী ও পুরুষদের পৃথক ওজু ও নামাজ আদায়ের সুবিধা, প্রতিবন্ধী মুসল্লিদের টয়লেটসহ নামাজের পৃথক ব্যবস্থা, ইসলামিক বই বিক্রয় কেন্দ্র, ইসলামিক লাইব্রেরি, অটিজম কর্নার, ইমাম ট্রেনিং সেন্টার, ইসলামিক গবেষণা ও দ্বিনি দাওয়া কার্যক্রম, পবিত্র কোরআন হেফজখানা, শিশু ও গণশিক্ষায় ব্যবস্থা,দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আবাসন ও অতিথিশালা, মরদেহ গোসল ও কফিন বহনের ব্যবস্থা, হজ্ব যাত্রীদের নিবন্ধনসহ প্রশিক্ষণ, ইমামের প্রশিক্ষণসহ ১৩ ধরনের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এখানে। জেলায় মোট ৮ টি মডেল মসজিদ নিমার্ন হবে বলে জানান।
ভোলা জেলা ঈমাম কমিটির সভাপতি মাওলানা বেলায়েত হোসেন বলেন, ভোলায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টার হওয়াতে এই অঞ্চলের মানুষের অনেক উপকার হবে। এখান থেকে সঠিক ভাবে ইসলাম শিক্ষা যেমন পাবে তেমনি ইসলাম প্রসার লাভ করবে। ইসলামকে প্রসারিত করার জন্য এই ধরনের চিন্তা ভাবনা গ্রহন করার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান।
মসজিদ দেখতে আসা মসলেউদ্দিন,কামাল সহ আরো অনেকে জানায়,মক্কা,মদীনায় অনেকেই অর্থের অভাবে যেতে পারেনা। তারা এই মসজিদে এসে অনেক আনন্দিত। কারন এখানকার সৌন্দর্য দেখে স্থানীয়রা খুশী। মসজিদটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ভোলার জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী, পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, গনপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কাজী শরীফ উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, প্রেসক্লাব সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, অর্ণি এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন শামিম, প্রিয়ন্তী এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান ছোটনসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতারা।