দেশের সবচেয়ে বড় মাল্টিপ্লেক্স চেইন ‘স্টার সিনেপ্লেক্স’-এর একটি ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে। তাদের মিরপুর সনি স্কয়ার শাখায় এক বৃদ্ধ বহুল আলোচিত সিনেমা ‘পরাণ’ দেখতে গিয়েছিলেন। কিন্তু ওই বৃদ্ধের পরনে লুঙ্গি থাকায় তাকে টিকিট দেয়নি কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি ফেসবুকে আসার পর ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে।

স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ অবশ্য বিষয়টি নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। তারা এর সঠিক তদন্ত করবেন বলে জানান। সেই সঙ্গে ওই বৃদ্ধ ব্যক্তিকে পুরো পরিবারসহ সিনেপ্লেক্সে ‘পরাণ’ দেখার আহ্বান জানান।

একদল তরুণ সিনেপ্লেক্সের সনি স্কয়ার শাখায় লুঙ্গি পরে গেছেন। ছবি তুলে পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। তাদের একজন মাশনুন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রথমে লুঙ্গি দেখে প্রবেশ করতে না দিলেও পরবর্তীতে আমাদের সংখ্যা দেখে হার মানতে বাধ্য হয় সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ। দেশের মাটিতে সংস্কৃতির অবমূল্যায়ন, মানব না মানব না!’

এদিকে সনি স্কয়ারে লুঙ্গি পরে ছুটে গেছেন মেধাবী কার্টুনিস্ট ও উদ্যোক্তা মোর্শেদ মিশু। সেখানে তিনি ফেসবুক লাইভে আসেন। লাইভে বলেন, ‘গতকাল দেখলাম লুঙ্গি পরার কারণে এক চাচাকে টিকিট দেওয়া হয়নি। তাই আজ লুঙ্গি পরে সনি সিনেমা হলে আসলাম। আমার আরও দুই ভাই লুঙ্গি পরে সিনেমা দেখতে এসেছেন। তারা টিকিট পেয়েছেন। আমি কাউন্টারে গিয়ে জিজ্ঞাসা করলাম, লুঙ্গি পরে আসছি, আমাকে কি টিকিট দেবেন? জবাবে বললেন, ‘হ্যাঁ, কোনো সমস্যা নেই; টিকিট পাবেন।’

উল্লেখ্য, সনি সিনেপ্লেক্সে গিয়ে অবজ্ঞার শিকার হওয়া সেই বৃদ্ধের নাম আমান আলী সরকার। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জে। ঢাকায় ছেলের কাছে বেড়াতে এসেছিলেন। মিরপুরে থাকার সুবাদে সেখানকার প্রেক্ষাগৃহে আলোচিত সিনেমা ‘পরাণ’ দেখতে যান। কিন্তু তার পরনে লুঙ্গি থাকায় কাউন্টার থেকে টিকিট দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়।

স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ এই ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করে জানিয়েছে, তারা দর্শককে সিনেমা দেখার নতুন অভিজ্ঞতা দিতে চায়। এক্ষেত্রে দর্শকের পোশাক কোনো বিবেচ্য বিষয় নয়।