পিতার শখের বসে ছেলে বিয়ে করতে গেল গরুর গাড়ীতে

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:
আমার গরুর গাড়ীতে বউ সাজিয়ে এই গানের কথা গুলো আজ অতীত প্রায় ২০,৩০ বছর আগে।গরুর গাড়ীতে বউ সাজিয়ে এই গানের কথায় রাখলো ছেলের পিতা।বর যাত্রী নিয়েবিয়ে করতে যেতো গরু গাড়ী নিয়ে ঘোড়ার গাড়ী অথবা পালকীতে চড়ে।বর্তমানে যান্ত্রিক কোনো বাহনে নয়, কনের বাড়িতে বরযাত্রীরা গেল গরুর গাড়িতে। কবুল শেষে নববধূ নিয়ে বাড়ি ফেরে একইভাবে। ঠিক এমনটাই ঘটেছে  সোমবার ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ডু উপজেলার কাচারি তোলা গ্রামে।

কিন্তু এই আধুনিক যুগে সেই পুরাতন ঐতিহ্য ধরে রাখতে এবং বাবার শখের বসে বর যাত্রী নিয়ে গেলো বউ আনতে কাচারি তোলা গ্রামের শিক্ষক খুরশিদ শুয়াইব বাবুলের ছেলে বর খুরশিদ সাফাত শুভ্র।নতুন বউ মোছাঃ রিংকি খাতুনের বাড়িও একই গ্রামে তার পিতার নাম শিক্ষক আব্দুল লতিফ। জানা যায় অনেক আগে থেকেই ইচ্ছা ছিলো শিক্ষক খুরশিদ শুআইব বাবুলের ছেলে খুরশিদ সাফাত শুভ্রকে বিয়ে দিবেন গরুর গাড়িতে করে তাই সেই ইচ্ছা পুরনেই আজকের এমন আয়োজন। এমন পুরাতন ঐতিহ্যবাহী বর যাত্রী নিয়ে যাওয়া এবং পিছনে মাইকে গান বাজানোকে কেন্দ্র করে এগুলো দেখতে গ্রাম বাসীর ঢল নামে। যা আজ প্রায় বিলুপ্তির পথে এতে দুই পরিবারের লোকে অনেক আনন্দিত।এই বিষয়ে শিক্ষক খুরশিদ  আলম জানান যান্ত্রিক যুগে সকলেই তো নামী-দামী গাড়ীতে বরযাত্রী যায় কিন্তু আমি তার ঠিক বিপরিত আয়োজন করে দেখিয়ে দিলাম এখনো  মানুষ পুরাতন সেই রীতিতে অনেক খুশি ।