পলাশবাড়ীতে হুমকি-ধামকি,মিথ্যা মামলা,অপপ্রচারপরপ্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার:-

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী পৌরশহরের ডাকাত, ভূমিদস্যু, কথিত সাংবাদিক শাহজাহান আলী ভুলুর হুমকি, ধামকি, মিথ্যা মামলা, অপপ্রচার ও মিথ্যাচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ১০ অক্টোবর রবিবার দুপুর ২টায় পলাশবাড়ী পৌরশহরের পুরাতন কৃষি ব্যাংক ভবনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী রিয়াসাত রিফফাত নবী মলিন সরকার তার লিখিত বক্তব্যে জানান, আমার বাবা নুনিয়াগাড়ী গ্রামের বাসিন্দা মৃত বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগি ও সফল ব্যবসায়ি রশীদুন নবী চান সরকার। আপনারা জানেন পলাশবাড়ী পৌর শহরে চিহ্নিন্ত ডাকাত ও মাদক ব্যবসায়ি কথিত সাংবাদিক শাহজাহান আলী ভুলু বিগত ও বর্তমান সময়ে আমার পৈত্রিক সম্পত্তি জবরদখল এবং উক্ত সম্পত্তি নিয়ে আমাকে নানাভাবে হুমকি, ধামকি, মিথ্যা মামলা, অপপ্রচার ও মিথ্যাচার করে আমাকে ও আমার পরিবারকে সমাজে হেয় করার প্রতিকার দাবীতে আজকের এই জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন। এ সংবাদ সম্মেলনে আমি এর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

আপনাদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, পৌর এলাকার নুরপুর মৌজার দাগ নং ৪৫১ ও ৪৪৭ দাগে মোট জমি ১০৮ শতাংশের মধ্যে ২৫ শতক দাবীর প্রেক্ষিতে ১৪৪ ও ১৪৫ ধারায় গত ২৮ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গাইবান্ধা মামলাটি খারিজ করে আমাদের পক্ষে রায় দেওয়ায় লোক লজ্জার ভয়ে রাতের আঁধারে শাহজাহান আলী ভুলু অবৈধভাবে জবরদখল করা ছাপড়া ঘরের স্থাপনা সরিয়ে নেয়। উক্ত ছাপড়া ঘরে শাহজাহান আলী ভুলু বা তার পরিবারের কেউ কখনো বসবাস করে নাই। বিগত সময়ে রাতের আঁধারে অবৈধভাবে উক্ত ছাপড়া ঘর তুলে জবরদখলের পায়তারা করে বিভিন্ন ভাবে অভিযোগ অব্যাহত রাখে এতে আমার ও আমার পরিবারের মানসম্মান ক্ষুন্ন করছে বটে।

শাহজাহান আলী ভুলু পলাশবাড়ী পৌর শহরের বৈরী হরিণবাড়ী গ্রামের মৃত লাল মিয়া ফকিরের ছেলে। সে একজন ডাকাত ও মাদক ব্যবসায়ি, ভূমিদস্যু ও ফটকাবাজ বটে। এই ভূমিদস্যু ও দাঙ্গাবাজ ব্যক্তির অপর্কম ও মামলা হামলার শিকার হয়ে আজ আমরা পারিবারিক ও সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছি। বিধায় তাহার উক্ত অপর্কমের প্রতিবাদ জানিয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের নিকট এর প্রতিকারের দাবী করছি। এসময় তিনি আরো উল্লেখ্য করেন যে, আমার প্রতিষ্ঠান ডিমল্যান্ড এ্যাডুক্যাশন পার্কের বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতাগণসহ অন্যান্য বিশিষ্ট মনিষীদের ভাষ্কর্য ভাঙ্গার হুমকি ধামকি প্রদান করায় গত ২০১৮ সালে ৭ অক্টোবর পলাশবাড়ী থানায় জিডি করা হয় যাহার নাম্বার-২৮২।

সংবাদ সম্মেলনের এসময় পৌর কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান শেখ ফরিদ, শ্রমিকনেতা সুরুজ হক লিটন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ি সাজাদুল ইসলাম, ফজলুল কবির প্রধান, মিন্টু খন্দকার, সাবু সরকারসহ স্থানীয় গণমান্যব্যক্তিবর্গ ও উপজেলার সর্বস্তরের গণমাধ্যমকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here