নজির হোসেনের কবিতা

❑ বসন্তকালে
বসন্তরূপ কি অপরূপ দুচোখ যেদিক যায়,
নব পুষ্পরা হেরিয়া আমায় গুনগুনে গান গায়।
পাপড়ি মেলে গোলাপ হেসে বললো আমায় ডেকে,
অনেক সুভাস আমার গায়ে তুমি কি একটু নেবে.?
চারদিক হইলো সুভাসিত গোলাপ ফুলের ঘ্রান,
মিষ্টি রোদের আলিঙ্গনে উতাল হইলো প্রান।
ফুটিলো ফুল কৃষ্ণলতা ফুটিল জবা ফুল,
সকাল সন্ধ্যা মৃদু হাওয়ায় খাচ্ছে মজার দুল।
কি মনোরম পরিবেশটা আর ভীষণ মিষ্টি হাওয়া,
প্রকৃতির লীলা অবলোকনে ভুলে গেলাম খাওয়া।
বৃক্ষে বৃক্ষে নতুন পাতা দেখতে লাগে ভালো,
ঝিলিক মারে নিশিত বেলা পড়লে চাঁদের আলো।
ক্ষেতের আলে কচিঁ ঘাস খায় দুটি রাজ হংসী,
কদম বৃক্ষের ডালে বসে বাজাই পোড়া বংশী।
রঙিনচোখে এসব দেখে মুগ্ধ আমার মন,
একটু দূরেই শুনলাম, গ্রীম্মবুড়ির আলাপন।
কোকিল পাখি ডাকে দেখো বসে উঁচু ডালে,
না জানি কি পেল কোকিল সুখ বসন্তকালে.!
❑ কেমনে ভুলে গেলি
হে ভাই বিদেশী ভাষায় কেন কথা বলিস তোরা,
নাকি ভুলে গেছিস-ঐতিহ্য ঘেরা বাঙালি মোরা.?
এই ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছি বলে ইতিহাস স্বাক্ষী,
সেই ইতিহাস আজও পড়িতে গেলে কাঁদে অক্ষি.!
খাঁটি বাঙালি ছিল রফিক বরকত জব্বার সালাম,
তাঁদের প্রানের বিনিময়ে মাতৃভাষা আমরা পেলাম।
কেমন করে তাঁদের তোরা ভুলিয়া গেলি,
বল,পরের ভাষায় কথা বলিয়া কি সুখ পেলি.?
পরের ভাষা অনুকরণে তোরা হলি কেমন লাভবান,
তাহলে কী মুল্যহীন ঐ ভাষা শহীদদের প্রান.?
রক্তদ্বারা রাঙানো এই বাংলা ভাষার কায়া,
মাতৃভাষার প্রতি তোদের নাই রে কেন মায়া.?
ভবে প্রবেশ থেকে মায়ের ভাষা শেখে আজ হলি স্যার,
নাকি আজও বুজলি না – স্যারের পিছনে অবদান কার.?
স্যার না বলে জনাব বললে হয় কি এমন কষ্ট,
নাকি ইচ্ছে করেই করছিস তোরা বাংলার মান নষ্ট.?
রক্তদ্বারা বিজয় এনে স্বাধীন ভাষায় জবান মেলি,
রক্তে রঞ্জিত সেই লাল ইতিহাস কেমনে ভুলে গেলি.?
বাংলায় কথা বলে মায়ের আঁচল তলে আয়,
জেনে রাখিস —
মাতৃভাষার বুলি ছাড়া সুখ নাই অন্যতায়।
❑ অদ্ভুত প্রশ্ন
মনটা আমার সারাক্ষণ ভাবনায় থাকে মগ্ন,
মাঝে মধ্যে করে বসে কিছু অদ্ভুত প্রশ্ন.!
বাস্তব আকাশ দেখেই মানুষ করে কতো ঢং,
কখনো কি দেখতে পায় রে মন আকাশের রং.?
চুল পাকলেই মানুষ যদি বৃদ্ধ হয়
যৌবনে যে দন্ত হারায় তারে কি কয়.?
স্বামী হারা মহিলা বিধবা হলে—
স্ত্রী হারা পুরুষদের কি বলে.?
শুধু ভাষা থাকিলেই যদি মানুষ হয়-
তাহলে বোবাদের হবে কি পরিচয়.?
ফুল ফুটঁলেই ফুল বৃক্ষের বাড়ে খুব দাম,-
যে গাছের ফুল -ফল নেই তাহার কি নাম.?
লাল রঙের জবা ফুল খুবি সুন্দর যেন,
শুধু সাদা চামড়ার মানুষকেই সুন্দর বলে কেন.?
দুধের সাথে কলা মিলে গরম ভাতে ঘি-
কালি দিলে কলম বলে না দিলে কি.?
গোটা মানবকূলের রক্তের রং যদি হয় লাল,
তবে কেন করে মানব জাত ভেদে গালাগাল.?
দুনিয়ার সবাই তো বাবা আদমের সন্তান,
তবে কেন করে মানুষ প্রকারভেদের সন্ধান.?
[ শিক্ষার্থী,দ্বাদশ শ্রেণি। জামালগঞ্জ সরকারি কলেজ। ]