টেকনাফে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে শিশুসহ একই পরিবারের নিহত-৩

আজিজ উল্লাহ, টেকনাফ:
টেকনাফের হোয়াইক্যং উংচিপ্রাণ এলাকায় বাসের সঙ্গে সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে শিশুসহ তিনজন নিহত হয়েছে।এঘটনায় দেলোয়ারসহ আরো কয়েকজন গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে,তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন পরিবার।
জানা যায়,বুধবার(১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮.০০ টায় হোয়াইক্যং লম্বাবিলের নাট্টিকার কোনায় স্থানে বাস-সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।এতে বাসের ধাক্কায় সিএনজি ভেঙে দুমড়ে  মুচড়ে যায় সিএনজির যাত্রীর মধ্যে তিনজন ঘটনাস্থলেই নিহত হয় বাকি যাত্রীদের অবস্থা মারাত্মক বলে জানা গেছে।এই ঘটনায় স্থানীয় মরিচ্যাঘোনা এলাকার একই পরিবারের সালামত উল্লাহ (৬০) তার ছেলে নজরুল(২৫) এবং ভাই নজরুলের ১০ মাসের শিশু সোহানা নিহত হয়।
এছাড়া গয়ালমারা হাসপাতাল হতে হ্নীলা পানখালী শিয়াইল্যা মোরার নজরুলের স্ত্রী রোকেয়া ও শিশু মেয়ে, কামরুলের স্ত্রী নুর নাহার ও ১০/১১ বছরের মেয়ে এবং সিএনজি চালক আলী আকবর পাড়ার আবুল মঞ্জুরের পুত্র নুরুল মোস্তফাসহ ৫জন নারী-শিশু ও পুরুষকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে নিহত নজরুলের শিশু মেয়ে এবং কামরুলের কিশোরী মেয়ের অবস্থা আশংকাজনক বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে।
টেকনাফ হোয়াইক্যাং ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর নুরে আলম দুর্ঘটনার বিষয়ে নিশ্চিত করে বলেন,’কক্সবাজার থেকে টেকনাফগামী পালকি নামক একটা বাসের সঙ্গে হ্নীলা থেকে উখিয়াগামী সিএনজির সঙ্গে উংচিপ্রাণ লম্বাবিল এলাকায় মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছে এতে নজরুলের ১০ মাসের শিশুসহ তার বাবা ঘটনাস্থলে নিহত হয় বলে জানান তিনি’।