ঝিনাইদহে মহেশপুরে বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন, কালীগঞ্জে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া

রানা আহম্মেদ অভি, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের মহেশপুর পৌরসভা নির্বাচনের ভোট কেন্দ্র থেকে পোলিং এজেন্টদের বের করা ও কেন্দ্রের ভোটের সাথে যুক্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে পক্ষপাতের নেওয়ারঅভিযোগ ভোট থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী। বেলা দেড়টার দিকে প্রার্থী আমিরুল ইসলাম পৌর শহরের দুলারী সিনেমা হলের পাশে বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ ঘোষণা দেন।
ঘোষণার সময় আমিরুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে তিনি কয়েকটি কেন্দ্রে ঘুরে দেখেছেন। সেখানে ভোটারদের নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে বাধ্য করা হয়। এমন পরিস্থিতিতে প্রশাসনও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। আমিরুল ইসলাম বলেন, এমন পরিবেশে ভোট হতে পারে না। তাই তিনি ভোট বর্জন করেছেন।
বিএনপি প্রার্থীর এমন অভিযোগের বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর সুলতানুজ্জামান লিটন জানান, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়। তাদের জনসমর্থন নেই—এটা বুঝেও ভোট করে, পরে প্রত্যাহার করে। এখন ভোট বর্জনও তাদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।
এদিকে ঝিনাইদেহর অন্য উপজেলার কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার সময় ইসলাম হোসেন (৩৫) নামের একজন আহত হয়েছেন। ধাওয়ার সময় পুলিশ, বিজিবি ও র‍্যাব ঘটনাস্থলে গিয়ে লাঠিপেটা করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।
বেলা ১১টার দিকে কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। মহেশপুর ৫৮ বিজিবির সহকারী পরিচালক নজরুল ইসলাম জানান, কাউন্সিলর প্রার্থী মেহেদী হাসান ও আরিফ হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে সামান্য বিষয় নিয়ে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে তাঁরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।
কাউন্সিলর প্রার্থী আরিফুর রহমান বলেন, তাঁর এক কর্মীকে দালাল বলা নিয়ে ওই ঘটনা ঘটে। ধাওয়ার বিষয়ে অপর কাউন্সিলর প্রার্থী মেহেদী হাসানের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি