ঝিনাইদহে বিস্কুট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৭ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ

আতিকুর রহমান,ঝিনাইদহ::ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলা আব্দুল খালেক (৫৫) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে ৭ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণ কারি মোঃ আব্দুল খালেক কোটচাঁদপুর উপজেলার ৪ নং বলুহর ইউনিয়নের সিঙ্গীয়া নতুন মাঠ পাড়া গ্রামের মৃত বুরাক মন্ডলের ছেলে। ২৮ ফেব্রুয়ারি শনিবার বোনের সাথে বেড়াতে আসে ময়না আক্তার   ( ছদ্মনাম) (৭) বুধবার ৩ মার্চ সন্ধার সময় বাচ্চাটি আরও ২-৩ টা বাচ্চার সাথে খেলা করে বাড়ির পাশে। ধর্ষণ কারী বাচ্চাটির বিস্কুট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ছোট মেয়েটিকে নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে বাড়িতে পৌছিয়ে দিয়ে যায়।শিশুটির বড় বোন শিউলি দেখে আমার বোনের মন খারাপ আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে আমাকে ঘটনাটি খুলে বলে।
স্থানীয় সূত্রে ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ খালেক এবং তার  ভায়েরা এবং গ্রামের লোকজন মিমাংসার চেষ্টা করে।কিন্তু ভুক্তভোগী পরিবার কোনো মিমাংসায় রাজি না হয়ে এ অপরাধের সঠিক বিচার পেতে কোটচাঁদপুর থানায় ধর্ষকের বিরুদ্ধে বড় বোন  বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। সাংবাদমাধ্যম কর্মীরা ধর্ষণকারির বড় ভাই কিনের কাছে জিজ্ঞাসা করলে সে বলে আমার ভাই দোষী।
এ বিষয়ে কোটচাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ  মাহবুবুল আলম  সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সিঙ্গীয়া গ্রামের  নতুন মাঠ পাড়া ধর্ষণের বিষয়ে  বৃহস্পিবার একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন । তদন্তে অভিযোগ প্রামানিত হলে অভিযুক্তকে দূত আইনের আওতায় আনা হবে। শিশু টিকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে মেডিকেলের জন্য পাঠানো হয়েছে। অফিসার আরও বলেন ডাক্তারী রিপোর্ট না পাওয়া পযন্ত কিছু বলা সম্ভব না।