জমি কিনে বিপাকে জেলা পরিষদ সদস্য পঙ্গু নাহার আক্তার

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥
খুলনার পাইকগাছায় জমি কিনে বিপাকে পড়েছে জেলা পরিষদের সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য নাহার আক্তার তিনি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। বিষয়টি নিয়ে আদালত ও থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে।
অভিযোগ ও সরজমিনে জানা যায়,খুলনা জেলা পরিষদের সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য নিজ অফিস করার জন্য নগর শ্রীরামপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম জোয়ার্দ্দারের কাছ থেকে কবলা মুলে ০.১৬৬ এককর জমি খরিদ করেন। নজরুল জোয়াদ্দার জানায় তার মামা সবুর গোলদারের কাছ থেকে দানীয় মুলে মালিক হন এবং তার অংশ নাহার আক্তারের কাছে দখল থাকা অবস্থায় বিক্রি করেন ।সবুর গোলদার তার দখলে থাকা অবস্থায় ৫ শতক জমির মধ্যে উক্ত সম্পত্তি ভাগ্নে নজরুলকে দান করেন। কিন্তু ০. ৩৪৪ একর সবুর গোলদারের দখলে থাকলেও নাহার আক্তারের খরিদা জমি জবর দখল করে নিয়েছে সবুর গোলদারে ভাই ও নজরুলের অন্য মামা সাত্তার গোলদার। নাহার আক্তার জানায়, গ্যাংগ্রীনি রোগে আক্তান্ত হলে একটি পা হাটুর উপর থেকে কেটে ফেলতে হয়। একারনে তিনি মামুদকাটি বাজারের পাশে অফিস করার জন্য উক্ত জমি ক্রয় করেন।সেখানে কিছুদিন অফিস কার্যক্রম চলতে থাকা অবস্থায় হঠাৎ ১৩ সেপ্টেম্ব ২০২০ আমার ঘরটি জবর দখল করা হয়েছে। এনিয়ে আদালতে ১৪৪ ধারা মাতে মামলা ও থানায় অভিযোগ করেছি। সাত্তার গোলদার জানায়,নাহার আক্তার যে জায়গায় জমি দাবী করছে ঐখানে তার কোন জমি নেই।এদিকে এ জায়গা বা ঘরটি দখল পাল্টা দখল নিয়ে দু-পক্ষই মামলা মকদ্দমায় জড়িয়ে পড়েছে বলে স্থানীয় ব্যাবসায়ীরা জানিয়েছে।