উখিয়া ছেপটখালী করাত মেইল থেকে চোরাই ঝাউগাছ উদ্ধার,মামলা দায়ের

আজিজ উল্লাহ,বিশেষ প্রতিবেদক:
উখিয়া জালিয়াপালং ইউনিয়নের ছেপটখালী অবৈধ করাত মেইলে রাতের আধাঁরে অভিযান চালিয়ে চোরাই ঝাউগাছ উদ্ধার করা হয়েছে।এঘটনায় মামলা দায়ের করেন সংশ্লিষ্ট বিট অফিস।যার মামলা নং ৫/চোয়াং/২০২১ ইং।
বুধবার (২রা মার্চ) রাত ৩.০০ টার দিকে চোয়াংখালী রেঞ্জের আওতাধীন ছেপটখালী কামরুজ্জামান ও ছৈয়দ উল্লাহ’র অংশীদারিত্ব করাত মেইলে অবৈধ চোরাই ঝাউগাছ চিরাই করার গোপন সংবাদ পেয়ে সংশ্লিষ্ট বিট অফিসের কর্মকর্তরা বিজিবি’র সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করে সমুদ্র তীর রক্ষায় রোপণকৃত সরকারি বন বিভাগের চোরাই ঝাউগাছ চিরাই করার সময় হাতেহাতে ধরা হয়।এসময় অভিযানের খবর পেয়ে গাছ চোরসহ করাত মেইলের মালিকরা পালিয়ে গেলে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।এঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আসামি করে পরবর্তীতে মামলা দায়ের করেন সংশ্লিষ্ট বিট অফিস।
ঐ এলাকায় নিয়মিত রাতের আধাঁরে ঝাউগাছ চুরি করার হিড়িক হয় যার নেতৃত্ব রয়েছে স্থানীয় আবু শামার ছেলে জুবাইর ও লাল মোহাম্মদের ছেলে জাফর আলমসহ তার সহযোগীরা। রাতে চোরাই ঝাউগাছ চিরাই করে বিক্রি করার অভিযোগ করেছে আর এসব চোরদের সহযোগিতায় রয়েছে সংশ্লিষ্ট অবৈধ করাত মেইলের বেশ কয়েকজন মালিক।
স্থানীয় অনেকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন,এসব অবৈধ করাত মেইলে বিভিন্ন সময় চোরাই ঝাউগাছ চিরাই করে যাচ্ছে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে সমুদ্র তীরের ঝাউগাছ।তা রক্ষা করতে হলে প্রয়োজন অবৈধ সমিল বন্ধ করা।শুধু তা নয় সংশ্লিষ্ট বিট অফিসের মাসিক মাসোহারায় এসব অবৈধ করাত মেইল চলে বলে অভিযোগ করেন সচেতন মহল।
অভিযুক্ত মেইলের অংশীদার কামরুজ্জামানের কাছ থেকে জানতে চাইলে বলেন,আমরা রাতে মেইলে থাকি না গাছ চোররা জোর করে ড্রাইভারকে ফুসলাইয়া চিরাইছে পরে ঝাউগাছ গুলো উদ্ধার করে বন বিভাগে নিয়ে যেতে গাড়িতে তু্লে দেই।
চোয়াংখালী বিট রেঞ্জের বিট কর্মকর্তা আর্জু মিয়া জানান,’ ছেপটখালী উল্লেখিত করাত মেইলে অবৈধ চোরা ঝাউগাছ চিরাইয়ের গোপন সংবাদ পেয়ে স্থানীয় বিজিবি’র সহায়তায় অভিযান চালিয়ে ১৮ ঘনফুট চোরা ঝাউগাছ জব্দ করা হয়।এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।চোরাই ঝাউগাছসহ পাহাড়ি গাছ ও পাহাড় কাটার বিরুদ্ধে বন বিভাগের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি,।